দাগনভূঞায় মধ্যবয়সী বিধবা নারী ধর্ষন-থানায় মামলা ও আসামী গ্রেফতার

24

দাগনভূঞা নিউজ ডেস্কঃ

ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলায় বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে আপন চাচাতো দেবর কর্তৃক মধ্যবয়সী এক বিধবা নারীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।

দাগনভূঞা থানা সূত্রে জানাযায়, দাগনভূঞা ৬নং সদর ইউনিয়নের দক্ষিন আলীপুরে গত ১৪ই ফেব্রুয়ারী বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে আনুমানিক রাত ৯ ঘটিকার সময় বাদীর ঘরে কেউ না থাকার সুযোগে বর্ণিত আসামী জাহাঙ্গীর আলম(৩৯) তাহার ঘরের দরজা খোলা পাইয়া বাদীর শয়নকক্ষে আসিয়া তাহার মুখ চাপিয়া ধরিয়া তাহাকে খাটে শোয়াইয়া বাদীর পরনের পায়জামা খুলিয়া বাদীকে তাহার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। বাদী জোর করিয়া তাহার মুখ হইতে আসামীর হাত সরাইয়া চিৎকার করিলে আশপাশের লোকজন আগাইয়া আসিয়া আসামীকে তাহার ঘরে পাইয়া আটক করিলে আসামী সুকৌশলে সাক্ষীদের হেফাজত হইতে পলায়ন করে।

জানাযায়, জানাযায় ধর্ষীতা নারীর স্বামী বিগত দেড় বছর পূর্বে প্রবাসে মৃত্যুবরণ করেছেন। তার পর থেকে আসামী প্রায় সময় বিদেশ হইতে বাদীকে মোবাইল ফোনে ফোন করিয়া বিবাহের প্রলোভন দেখাইয়া কথা বলিত । বিগত ০২ মাস পূর্বে আসামী বিদেশ হইতে আসিয়া বেশ কয়েকবার বাদীর ঘরে যায়। বাদী তাহাকে শরীয়ত মোতাবেক বিবাহ করিবার জন্য বলিলে সে বাদীকে বিবাহের বিষয়ে আশ্বস্থ করে এবং বিভিন্ন তারিখ ও সময়ে বাদীকে তাহার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। বাদী লোকলজ্জার ভয়ে বিষয়টি কাউকে জানায় নাই

দাগনভূঞা থানা অফিসার ইনচার্জ ইমতিয়াজ আহাম্মেদ উক্ত ঘটনার সত্যতা জানিয়ে দৈনিক সকারের সময় প্রতিনিধিকে জানান, আপন চাচাতো দেবর কর্তৃক মধ্যবয়সী এক বিধবা নারীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণের ঘটনায় বাদী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করলে জরুরীভাবে উক্ত ঘটনার আসামী জাহাঙ্গীর আলমকে গ্রেফতার করে ফেনী বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।